হযরত বাহাউদ্দিন ও একটি পাখী
নাক্সবন্দিয়া তরিকার প্রবর্তক হযরত বাহাউদ্দিন নাক্সবন্দি। একবার তিনি মুরিদদের নিয়ে বসে আছেন। এমন সময় একটি ছোট্ট পাখি ঐ ঘরের ভেতর ঢুকে গেল। কিন্তু আর তো বেরোতে পারছে না-একবার এ দেয়ালে ধাক্কা খাচ্ছে তো আবার ও দেয়ালে।

এর মধ্যে পাখিটাকে সাহায্য করার জন্যে একজন মুরিদ উঠতে যাচ্ছিলেন, সাথে সাথে হযরত বাহাউদ্দিন তাকে বললেন-তুমি বস। তোমাকে কিছু করতে হবে না। শিষ্যরা একটু অবাক হলেন। পাখিটা ছটফট করতে করতে একসময় জানালার পাশে গিয়ে বসল, হাঁপাতে লাগল। যে-ই একটু স্থির হলো, অমনি বাহাউদ্দিন একটা হাততালি দিলেন। চমকে উঠে পাখিটা বেরিয়ে গেল জানালা দিয়ে।

বাহাউদ্দিন তখন বললেন-দেখ, যখন পাখিটা ছটফট করছিল, ওড়াউড়ি করছিল, তুমি যত কিছু বোঝাতে চাইতে, সে বুঝতো না। যখন সে শান্ত হলো, নীরব হলো তখন আমার হাততালিতে সে চমকে উঠল ঠিকই; কিন্তু চমকে উঠেই সে নতুন সত্য উপলব্ধি করল যে, রাস্তা এইদিকে এবং সে বেরিয়ে গেল।

সত্য উপলব্ধির জন্যে প্রয়োজন অন্তরের স্থিরতা ও প্রশান্তি।