আরও পড়তে পারেন:

কর্মক্ষম এক চতুর্থাংশ মানুষের পূর্ণকালীন কাজ নেই?

পিছিয়ে গেল খালেদা জিয়ার জামিনের সম্ভাবনা

ধর্ষিতা রোহিঙ্গা নারীদের জীবন ছ'মাস পর সীমা (ছদ্ম নাম) মিয়ানমারের মংডুতে ধর্ষণ শিকার হন মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পাঁচ জন সদস্যের দ্বারা।

এরপর নভেম্বরের নয় তারিখে ১২ দিন পায়ে হেটে কোনমতে পালিয়ে আসেন বাংলাদেশে। কিন্তু সীমা তখনো জানতো না ধর্ষণের ফলে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে।

বাংলাদেশে আসার পর যখন তিনি ডাক্তারের শরণাপন্ন হন তখন অনেক দেরি হয়ে গেছে। ডাক্তার তাকে বলে দেন এখন সন্তান নষ্ট করলে তার জীবনের ঝুঁকি তৈরি হবে।

সীমা এখন ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তার সাথে যখন আমার দেখা হল তিনি উখিয়ার বালুখালি ক্যাম্পে একটি পলিথিনে ঘেরা ঘরে শুয়ে ছিলেন।