তিনি হঠাৎ উঠে দাঁড়িয়ে জর্জ বুশকে 'কুকুর' বলে সম্বোধন করে তাকে লক্ষ্য করে তার দু'পাটি জুতো ছুঁড়ে মারেন।

তিনি বলছিলেন, দুটি জুতোর একটি হচ্ছে ইরাকি জনগণের বিদায়ী চুম্বন, আর অপরটি মার্কিন অভিযানে নিহতদের স্ত্রী-সন্তানদের পক্ষ থেকে।

দুটোর কোনটাই মার্কিন প্রেসিডেন্টের গায়ে লাগে নি, তবে জুতো ছুঁড়ে মারাটা আরবের সংস্কৃতিতে গুরুতর অপমানসূচক বলে মানা হয়।

এ ঘটনা মুনতাদের আল-জায়েদিকে রাতারাতি আরব বিশ্বে একজন 'হিরো' বা নায়কোচিত ব্যক্তিতে পরিণত করে।

প্রেসিডেন্ট বুশ বলেছিলেন, তিনি এতে রাগ করেননি বরং আমোদ পেয়েছেন। "আমি প্রেসিডেন্ট হিসেবে বহু বিচিত্র ঘটনা দেখেছি, তবে সবচেয়ে আজব ঘটনা ছিল এটাই।"

বিবিসি বাংলায় আরো খবর:

দুবাই রাজকন্যার পলায়ন নাটক, বিতর্কে নরেন্দ্র মোদী

কেন সুচির সুর নরম, নিরাপত্তা পরিষদ কি বলেছে তাকে

'দিনে পাঁচবার যৌনমিলনও যথেষ্ট ছিল না'

'ইসলাম বিদ্বেষ কমছে, তবে পরিস্থিতি উদ্বেগজনক'

ছবির কপিরাইটSTR
Image caption